২১ শে ফেব্রুয়ারির এসএমএস, শুভেচ্ছা বাণী, স্ট্যাটাস, উক্তি, পোস্টার ও ছবি

প্রতিবছর একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালন করা হয়। এই দিনটিতে বাংলাদেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ অন্যান্য সরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকে। এবং সরকারি বেসরকারি সকল প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে একুশে ফেব্রুয়ারি নানান ভাবে পালন করা হয়। বাঙালি জাতির জন্য এই দিনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি দিন।

১৯৫২ সালের এই দিনে (৮ ফাল্গুন, ১৩৫৮, বৃহস্পতিবার) বাংলাকে পূর্ব পাকিস্তানের অন্যতম রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে আন্দোলনরত ছাত্রদের ওপর পুলিশের গুলিবর্ষণে অনেক তরুণ শহীদ হন। এই ভাষার জন্য প্রাণ দেন সালাম বরকত জব্বার সহ আরো অনেক জন। তাই এই দিনটিকে শহীদ দিবস হিসেবে পালন করা হয়ে থাকে। বাংলাদেশের ইতিহাসে এটি ছিল একটি অন্যতম দিন। তাই এই দিনটিকে স্মরণীয় রাখতে বাংলাদেশের সকল সর্বস্তরের জনগণ মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালন করে।

একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে নানান ধরনের কর্মসূচি পালনের মধ্য দিয়ে এই দিনটি শুরু করা হয়। অনেকেই শুভেচ্ছা বিনিময় করে। শুভেচ্ছা বিনিময়ের মাধ্যমে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে থাকে। আজকে এই পোস্টে আমরা শেয়ার করব- একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে কিছু বিখ্যাত মনীষীদের বাণী, উক্তি, শুভেচ্ছা এসএমএস এবং আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা। আপনারা অবশ্যই এই পোস্ট করবেন এবং আশা করতেছি যা করছেন তা পেয়ে যাবে

Contents

২১ শে ফেব্রুয়ারি এসএমএস- SMS

মূলত এসএমএসের মাধ্যমেও আপনি অপরজনকে মাতৃভাষা দিবসের শুভেচ্ছা জানাতে পারবেন। এসএমএস দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো এটি এক ধরনের একটি কালচার বলা চলে। অনেকে একুশে ফেব্রুয়ারি নিয়ে পরিপূর্ণ ধারণা রাখে না। অনেক সময় হিমশিম খেতে হয় মানুষকে শুভেচ্ছা জানাতে। আজকে আমি আপনাদের সাথে কিছু শেয়ার করবো যেগুলো আপনারা খুব সহজেই মানুষকে পাঠাতে পারবেন। নিজে থেকে কিছু এসএমএস দেখে নেওয়া যাক।

“এই একুশ আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো তাই আমি এই ২১ ভুলতে পারিনা!!
যতকাল রবে এই বাংলা রয়ে যাবে সকল ভাষা শহীদদের স্মরণ।”

  • আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আমাদের সকলকে মনে করিয়ে দেয় যে মাতৃভাষা সম্পর্কে এমন একটি বিশেষ কিছু রয়েছে যা এটিকে এত সুন্দর করে তুলেছে। এই দিনটিতে আপনাকে আন্তরিক শুভেচ্ছা।

২১ শে ফেব্রুয়ারি শুভেচ্ছা

শুভেচ্ছা বিনিময়ের মধ্য দিয়ে ২১ শে ফেব্রুয়ারি এর মত বিনিময় করা যায়। মূলত একে অপরকে শুভেচ্ছা জানিয়ে এই দিনটি সম্পর্কে আরো সচেতন করে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে সর্বস্তরের জনগণ একে অপরকে বিভিন্ন মাধ্যমে শুভেচ্ছা জানায়। শুভেচ্ছা বিনিময়ের মাধ্যমে মানুষ এই মাতৃভাষা দিবসের জানতে পারে। এখানে আমরা কিছু একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে শুভেচ্ছা বাণী শেয়ার করব। আপনারা অন্যজনকে শুভেচ্ছা বাণী হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন।

ভাষা হল আত্মার রক্ত যার মধ্যে চিন্তাভাবনা চলে এবং যা থেকে তারা বেড়ে ওঠে- অলিভার ওয়েন্ডেল হোমস সিনিয়র।

“যারা ভাষার জন্য প্রাণ দিয়েছে তাদের সব সময় মনে রাখতে হবে
তাদের জন্য একদিন নয় তাদের জন্য পুরো বছর রাখা উচিত।”

২১ শে ফেব্রুয়ারির বাণী ও উক্তি

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে ঘিরে বাংলাদেশের মানুষ বিভিন্ন মত প্রকাশ করেছে। এদের মধ্যে কিছু উল্লেখযোগ্য ব্যক্তি রয়েছে যারা মাতৃভাষা দিবসকে নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বাণী লিখেছেন। এই বাণী মূলত মানুষকে মনে করিয়ে দেয় মাতৃভাষার গুরুত্ব। আসলে অনেককেই শুদ্ধ ভাষায় কথা বলতে পারে না বা ভাষার চর্চা দিকে আগ্রহী নয়। এত ত্যাগের বিনিময়ে আমরা আমাদের মাতৃভাষা পেয়েছি। অবশ্যই প্রত্যেকের উচিত মাতৃভাষা দিবসকে চর্চা করা। এবং এর গুরুত্ব। কিছু বিখ্যাত মনীষীদের একুশে ফেব্রুয়ারি নিয়ে বলা বাণী শেয়ার করতেছি। আশা করছি আপনাদের সবার কাজে লাগবে।

রফিক, সালাম, বরকত, আরো হাজার বীর সন্তান,
করলো ভাষার মান রক্ষা বিলিয়ে আপন প্রান ,
যাদের রক্তে রাঙ্গানো একুশ ওরা যে অম্লান,
ধন্য আমার মাতৃভাষা ধন্য তাদের প্রান ।

 

একুশ আমার গর্ব, একুশ আমার অহংকার।
বর্তমান প্রজন্মকে এই দিন সম্পর্কে জানানোর আহ্বান জানাই সকলকে।
কয়জনই বা পারে ভাষার জন্য নিজের জীবন বিলিয়ে দিতে?
এই দিনটি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালন করায় আমরা গর্বিত।

বাংলায় কথা বলি, বাংলাকে সমৃদ্ধ করি। যে ভাষার ভালোবাসায় বুকের তাজা রক্তের দাগ লেগে আছে। সেই ভাষাকে সম্মান করি। বাংলা ভাষা তা হোক আঞ্চলিক বা প্রমিত। বাঙালির পরিচয় বাংলায়। বাঙালির অহংকার বাংলা। সবাইকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের শুভেচ্ছা।

একুশে ফেব্রুয়ারি নিয়ে স্ট্যাটাস

বাংলাদেশের মানুষ এখন সবাই ইন্টারনেট প্রিয়। প্রাপ্তবয়স্ক এমন কোনো মানুষ নেই যে ইন্টারনেট ব্যবহার করে না। ইন্টারনেট ব্যবহারের উদ্দেশ্য হচ্ছে নিজস্ব ব্যক্তিগত কাজে অথবা সময় কাটানোর জন্য। মানুষ সময় কাটানোর জন্য সোশ্যাল মিডিয়া গুলো কেই বেছে নেয়। তাদের মধ্যে সবচাইতে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম হচ্ছে ফেসবুক। একুশে ফেব্রুয়ারি নিয়ে মানুষ ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিবেনা এটা কি হয়? স্ট্যাটাস দিয়ে মাতৃভাষার শুভেচ্ছা এটি একটি নতুন ট্রেন্ড । মাতৃভাষা দিবস নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা আমরা নিচে প্রকাশ করব। যেগুলো আপনারা ফেসবুকে অথবা টুইটার অথবা হোয়াটসঅ্যাপে স্ট্যাটাস লিখে মানুষের সাথে শেয়ার করতে পারবেন।

আমার ভাষা, আমার মায়ের ভাষা, গর্বিত এই ভাষায় কথা বলতে পেরে। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের শুভেচ্ছা সবাইকে।

উজ্জীবিত হোন মাতৃভাষায়। শুভ হোক আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস!

মনে পড়ে ৫২ এর কথা, মনে পড়ে একুশে ফেব্রুয়ারির কথা, যখন হারিয়েছি আমার ভাইদের, দিয়েছি রক্ত ভাষার জন্য।

প্রানটা জুড়িয়ে যায় – যখন শুনি গ্রাম বাংলার গান। কি মধুর বাংলা গানের সুর। মন ভরে যায়, তাঁদের জন্য – যারা জীবন করেছে দান ভাষার জন্য।

একুশে ফেব্রুয়ারির ছবি ও পোস্টার

শহীদ মিনারের ছবি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বস্তু। এই দিনটিতে মানুষ শহীদ মিনারের ছবি খুঁজে একুশে ফেব্রুয়ারি বিভিন্ন কাজের জন্য। আমরা কিছু নতুন শহীদ মিনারের ছবি একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে এখানে প্রকাশ করব। হয়তোবা আপনার পূর্বে থেকেছেন। আর আপনি অবশ্যই এখানে এসেছেন ছবি বা পোস্টার খোঁজার জন্য। আমি তাই আমরা একুশে ফেব্রুয়ারি পোস্টার গুলো এখানে দিয়ে দিচ্ছি। আপনার ইচ্ছা করলে খুব সহজেই মোবাইল অথবা আপনার ব্যবহৃত ডিভাইস থেকে এগুলো ডাউনলোড করতে পারবেন।

একুশে ফেব্রুয়ারি নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন ও উত্তর

প্রশ্ন- ১ ঃ একুশে ফেব্রুয়ারি কি দিবস? 

উত্তরঃ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।

প্রশ্ন- ২ ঃ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস কবে স্বীকৃতি পায়?

উত্তরঃ  ১৯৯৯ সালে ইউনেস্কো কর্তৃক বাংলাকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের স্বীকৃত এবং ২০১০ সালে জাতিসঙ্গের সাধারণ পরিষদ ‘এখন’ থেকে প্রতিবছর একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস হিসাবে পালিত হবে’ প্রস্তাবটি সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়।

প্রশ্ন- ৩ ঃ প্রথম আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস কতটি দেশে পালিত হয়?

উত্তরঃ ২০০০ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি থেকে পৃথিবীর ১৮৮টি দেশে এ দিনটি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালন শুরু হয়।

Leave a Comment